News Headline :
সড়ক পথে নেপাল যেতে যা প্রয়োজন অষ্টম স্প্যান বসল পদ্মা সেতুতে পাকিস্তান ভারত থেকে হাই কমিশনারকে ডেকে পাঠাল অজিত দোভাল মোদীকে দিলেন কামরানের মৃত্যুর খবর সবচেয়ে স্বাস্থ্যকর কলা কোনটি? হুঁশিয়ারি ইরানের ,জঙ্গিদের আশ্রয়দান বন্ধ না করলে ফল ভুগতে হবে পাকিস্তানকে পাটগ্রামে বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশি নিহত পারমাণবিক যুদ্ধের আশঙ্কা বাড়িয়ে দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র বিনামূল্যে যৌনতার প্রতিশ্রুতি দেবেন রাহুল শপথও নেবে না, চা চক্রেও যাবে না ঐক্যফ্রন্ট আর্জেন্টাইন ফুটবলার বেঁচে আছেন দ্বীপে বিমানসহ নিখোঁজ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান দুদক আতঙ্কে রেলের স্লীপারে হেডফোনে মগ্ন দুই ছাত্রের করুণ মৃত্যু আজকের দিনটি কেমন যাবে আপনার রাশিয়ার একমাত্র টেলিস্কোপে মিলছে না সাড়া শো-এর মাঝে অভব্যতা? কপিলের বিরুদ্ধে অভিযোগ নিয়ে মহিলা পৌঁছলেন সলমনের কাছে? সাধারণ সিগারেটের তুলনায় কি ফ্লেভার্ড সিগারেট কম ক্ষতিকর? স্পাইডারম্যান বাণিজ্য মেলায় কীভাবে দুর্যোগ মোকাবেলা করতে হয় জনগণ বুঝে গেছে : প্রধানমন্ত্রী জমে উঠেছে বিপিএল —লাইভ দেখুন:কুমিল্লা এবং ঢাকা
উনের সঙ্গে দ্বিতীয়বারের সাক্ষাৎ ঘিরে আশাবাদী ট্রাম্প

উনের সঙ্গে দ্বিতীয়বারের সাক্ষাৎ ঘিরে আশাবাদী ট্রাম্প

ওয়াশিংটন: বিরোধী ডেমোক্রেটসরা যাই বলুক না কেন৷ গা করছেন না মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প৷ উলটে তিনি মুখিয়ে রয়েছেন উত্তর কোরিয়ার প্রেসিডেন্টের সঙ্গে সাক্ষাতের জন্য৷ ওয়াশিংটন শনিবারই স্পষ্ট করে চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতেই দ্বিতীয়বারের জন্য সাক্ষাৎ হতে চলেছে কিম জং উন ও ডোনাল্ড ট্রাম্পের৷

বৈঠক ঘিরে চড়ছে উত্তেজনার পারদ৷ কী বিষয়ে ফের বৈঠক তা জানা যায়নি৷ তবে দ্বিতীয়বারের এই সাক্ষাৎ ঘিরে আশাবাদী মার্কিন প্রেসিডেন্ট৷ ট্যুইটারে তিনি জানান, পরমাণু নিরস্ত্রীকরণের ক্ষেত্রে উত্তরকোরিয় প্রেসিডেন্টের সঙ্গে প্রথম সাক্ষাৎ ছিল অত্যন্ত সদর্থক৷ দেখতে হবে ওবামা প্রশাসনের সময়ের নিরিখে৷ উভয় দেশের সম্পর্ক কোথায় ছিল, এখন কোথায় রয়েছে৷

কিম জং উনের সঙ্গে দ্বিতীয়বার সাক্ষাতের প্রেক্ষাপট তৈরি হতেই বিরোধীতায় সরব হন ডেমোক্রেটসরা৷ তাদের যুক্তি প্রথম বৈঠকে পরমাণু নিরস্ত্রীকরণের যে প্রতিশ্রুতি উত্তর কোরিয়া দিয়েছিল তা পালন করা হয়নি৷ এবিষয়ে সব জেনেও নীরব ট্রাম্প প্রশাসন৷ এর মাঝেই দ্বিতীয় সাক্ষাতের সময় নির্দিষ্ট করা হয়েছে৷ ফের এক লোক দেখানো নিজেদের প্রচার সর্বস্ব বৈঠক করে কী লাভ?

বিরোধীতায় অবশ্য আমল দিচ্ছেন না আমেরিকার এই সর্বময় কর্তা৷ তাঁর লক্ষ্য উনের কোরিয়াকে ক্রমে পরমাণু নিরস্ত্রীকরণের দিকে নিয়ে যাওয়া৷ পরমাণু নিরস্ত্রীকরণ নিয়ে আমেরিকার দাদাগিরি মানতে নারাজ ছিলেন উন৷ ফলে উভয় দেশের সম্পর্ক তলানিতে পৌঁছয়৷ বিশ্বের প্রথম সারির একাধিক দেশ বিভিন্নভাবে নিষেধাজ্ঞা জারি করেন কোরিও দ্বীপ রাষ্ট্রটির উপর৷ তাতেও পিছপা হননি কিম জং উন৷ চালিয়ে গিয়েছেন লড়াই৷

অবশেষে ২০১৮ সালের জুনে সিঙ্গাপুরে ঐতিহাসিক সাক্ষাত হয় মার্কিন প্রসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও উত্তর কোরিয়ার সর্বময় কর্তা কিমের৷ বৈঠক ফলপ্রসূ বলে দাবি করে উভয় রাষ্ট্র প্রধানই৷ কিম জানান ক্রমেই পারমণু নিরস্ত্রীকরণের কাজ চলবে দেশে৷ তবে তা কতদিনের মধ্যে সম্পন্ন হবে তা বলা হয়নি৷

অভিযোগ এই প্রতিশ্রুতির পরও পারমাণু সংক্রান্ত কাজ সেদেশে চলছে বহালতবিয়াতে৷ যদিও গত সপ্তাহেই উত্তর কোরিয়ার প্রিসিডেন্টের অত্যন্ত ঘনিষ্ট ও দেশের প্রাক্তন পারমাণবিক কার্যক্রমের প্রধান উনের প্রকিনিধি হয়ে ওয়াশিংটনে যান৷ কথা বলেন মার্কিন প্রেসিডেন্টের সঙ্গে৷ তারপরই চূড়ন্ত হয় যুযুধান উভয় রাষ্ট্র প্রধানদের মধ্যে সাক্ষাতের বিষয়টি৷ তবে কোথায় হবে এই বৈঠক তা এখনও জানা যায়নি৷ মনে করা হচ্ছে ব্যংকক অথবা সিঙ্গাপুরেই হতে পারে ট্রাম্র-উনের দ্বিতীয়বারের সাক্ষাৎ৷

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2019 OEBIT