News Headline :
সড়ক পথে নেপাল যেতে যা প্রয়োজন অষ্টম স্প্যান বসল পদ্মা সেতুতে পাকিস্তান ভারত থেকে হাই কমিশনারকে ডেকে পাঠাল অজিত দোভাল মোদীকে দিলেন কামরানের মৃত্যুর খবর সবচেয়ে স্বাস্থ্যকর কলা কোনটি? হুঁশিয়ারি ইরানের ,জঙ্গিদের আশ্রয়দান বন্ধ না করলে ফল ভুগতে হবে পাকিস্তানকে পাটগ্রামে বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশি নিহত পারমাণবিক যুদ্ধের আশঙ্কা বাড়িয়ে দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র বিনামূল্যে যৌনতার প্রতিশ্রুতি দেবেন রাহুল শপথও নেবে না, চা চক্রেও যাবে না ঐক্যফ্রন্ট আর্জেন্টাইন ফুটবলার বেঁচে আছেন দ্বীপে বিমানসহ নিখোঁজ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান দুদক আতঙ্কে রেলের স্লীপারে হেডফোনে মগ্ন দুই ছাত্রের করুণ মৃত্যু আজকের দিনটি কেমন যাবে আপনার রাশিয়ার একমাত্র টেলিস্কোপে মিলছে না সাড়া শো-এর মাঝে অভব্যতা? কপিলের বিরুদ্ধে অভিযোগ নিয়ে মহিলা পৌঁছলেন সলমনের কাছে? সাধারণ সিগারেটের তুলনায় কি ফ্লেভার্ড সিগারেট কম ক্ষতিকর? স্পাইডারম্যান বাণিজ্য মেলায় কীভাবে দুর্যোগ মোকাবেলা করতে হয় জনগণ বুঝে গেছে : প্রধানমন্ত্রী জমে উঠেছে বিপিএল —লাইভ দেখুন:কুমিল্লা এবং ঢাকা
কীভাবে দুর্যোগ মোকাবেলা করতে হয় জনগণ বুঝে গেছে : প্রধানমন্ত্রী

কীভাবে দুর্যোগ মোকাবেলা করতে হয় জনগণ বুঝে গেছে : প্রধানমন্ত্রী

প্রথানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বাংলাদেশ দুর্যোগের দেশ। আবহাওয়া ও জলবায়ুর কারণে বাংলাদেশে বন্যা, খরা ও ঘূর্ণিঝড়ের মতো দুর্যোগ নেমে আসে। সরকারের সহযোগিতায় আমাদের দেশের জনগণ বুঝে গেছে কীভাবে দুর্যোগ মোকাবেলা করতে হয়। আমাদের জনগণ এখন অত্যন্ত সচেতন। যেকোনো দুর্যোগের আগে সরকারি-বেসরকারি সকল প্রতিষ্ঠানের লোকজন ঝাপিয়ে পড়ে দুর্যোগ কবলিত মানুষদের রক্ষা করার জন্য। দুর্যোগ সম্পর্কে বাংলাদেশের মানুষের সচেতনা এখন অনেক বৃদ্ধি পেয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের সিভিল মিলিটামি মানবিক সহায়তা কার্যক্রম সমন্বয় গ্রুপ (আরসিজি) এর চতুর্থ সেশনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

রাজধানীর হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টাল গ্রান্ড বল রুমে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এতে বিভিন্ন দেশের ১৫০জন প্রতিনিধি অংশগ্রহণ করছেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, দুর্যোগ প্রতিরোধ সম্ভব নয়। তবে দুর্যোগে ক্ষয়ক্ষতি কমানো সম্ভব। প্রাকৃতিক দুর্যোগে বাংলাদেশের অবস্থান অত্যন্ত নাজুক। প্রাকৃতিক দুর্যোগের সঙ্গে মনুষ্যসৃষ্ট দুর্যোগও উপেক্ষা করতে পারি না। মনুষ্যসৃষ্ট দুর্যোগেও অনেক ক্ষতি হয় বাংলাদেশের।

তিনি বলেন, সবচেয়ে ভয়াবহ দুর্যোগের আঘাত ছিল ১৯৭০ সালের সাইক্লোনে। এ দুর্যাগে প্রায় ১০ লাখ মানুষের মৃত্যু হয়। এত বড় সাইক্লোনের পর, দুর্যোগের পর তৎকালীন পাকিস্তান সরকারের কাছ থেকে কোনো সাহায্য-সহযোগিতা পাওয়া যায়নি। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তার দলের নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে সাহায্য নিয়ে মানুষের পাশে গিয়ে দাঁড়িয়ে ছিলেন। বিভিন্ন মানুষের সহযোগিতা নিয়ে ত্রাণকার্য পরিচালনা করেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, দুর্যোগের বিষয়ে আমরা কর্মসূচি গ্রহণ করেছি। আশা করি, যেকোনো মোকাবেলা করতে এবং ক্ষয়ক্ষতি কমাতে সক্ষম হবো।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়ের সচিব শাহ কামাল। এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান ও সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আজিজ আমেদ।

অনুষ্ঠানে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনার ওপর একটি তথ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়।

এফএইচএস/এমবিআর/আরআইপি

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2019 OEBIT