News Headline :
মাইক হাসি এই বাংলাদেশ দলকে সমীহ করছেন নুসরতের বিয়ের প্রথম ছবি এল প্রকাশ্যে ভোটে জিতেই আজমের শরিফে গেলেন নুসরত,শোনা যাচ্ছে বিয়ে ঠিক বিজেপি ম্যাজিক ফিগারও টপকে গেল বরুণ ধাওয়ান ডিসেম্বরেই প্রেমিকা নাতাশাকে বিয়ে করছেন অ্যাশকে নিয়ে ‘Exit Poll’ মিম শেয়ার করে বিপদে বিবেক রাজ নয়, শুভশ্রীর সঙ্গে স্কাই ডাইভিং-অন্য একজন আসছে ‘সুপারহিরো’ রোনালদো! ৫৩৬ কোটি টাকার ক্ষতি ফণীর ছোবলে ইতিহাস গড়ে ফাইনালে লিভারপুল, বিধ্বস্ত বার্সা বিতর্কের মুখে ঝামা ঘষে ফণী আক্রান্তদের ১কোটি টাকা দান অক্ষয়ের সুবীর নন্দীর মরদেহ কাল সকালে দেশে আসবে জিরো সাইজ ফিগার বানাতে গিয়ে র‍্যাম্পেই মৃত্যু মডেলের জঙ্গি হাশিম শ্রীলঙ্কায় হামলার আগে দু’বছর ভারতে ছিল মন্নতে গোপনে দেখা করলেন তিন খান আবার মোদী সরকার পেতে আরও একমাস: নরেন্দ্র মোদী ক্যামেরার সামনে প্রথম বিকিনি পড়ে দাঁড়ালাম… বিস্ফোরক অভিনেত্রী প্রাণ বাঁচিয়ে দেশে ফিরতে মরিয়া শ্রীলঙ্কার ভারতীয় পর্যটকরা ফেসবুকে কনটেন্ট দেখতে টাকা লাগবে কুলদীপ দুঃস্বপ্নের ওভার শেষে মাঠেই কেঁদে ফেললেন
খুনের চেয়েও জঘন্য অপরাধ ম্যাচ ফিক্সিং

খুনের চেয়েও জঘন্য অপরাধ ম্যাচ ফিক্সিং

ম্যাচ ফিক্সিংয়ের দায়ে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) থেকে দুই বছরের নির্বাসনে ছিলো চেন্নাই সুপার কিংস। গেলো আসরে ফিরেই জেতে শিরোপা। এই দূরে থাকা ও ফিরে আসার যাত্রা নিয়েই তৈরি হচ্ছে একটি তথ্যচিত্র। যা তৈরি করছে চেন্নাই কর্তৃপক্ষ।

সেখানে দলের অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি কথা বলেন পুরো সময়টা নিয়ে। কীভাবে আবার ফিরে আসা, ফিক্সিংয়ে তার নাম জড়িয়ে যাওয়া সব বিষয় কথা বলেন অভিজ্ঞ এই উইকেটরক্ষক ও ভারতের সাবেক অধিনায়ক।

২৩ মার্চ থেকে শুরু হতে যাওয়া আইপিএলের আগেই মুক্তি পাবে ‘রোর অব দ্য লায়ন’ নামের তথ্যচিত্রটি। সম্প্রতি মুক্তি পেয়েছে এই তথ্যচিত্রের চুম্বক অংশ। যেখানে ধোনিকে বলতে শোনা যায়, খুনের চেয়েও বড় অপরাধ ম্যাচ ফিক্সিং!

ধোনি বলেন, ‘আমার মতে সবচেয়ে জঘন্য অপরাধ কাউকে খুন করা নয়। বরং ম্যাচ-ফিক্সিং। দল জড়িয়ে গিয়েছিল। আমার নামও জড়িয়ে যায়। খুব কঠিন সময় ছিল আমাদের। ভক্তরা ভেবেছিলেন শাস্তিটা বাড়াবাড়ি হয়ে গিয়েছে। তাই কামব্যাকটা ছিল খুবই আবেগতাড়িত। তাই আমি সবসময়ই বলে থাকি, এটা তোমাকে হত্যা করে না আরও বেশি দৃঢ় করে তোলে।’

এমকেএম

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

© All rights reserved © 2019 OEBIT